ঘরে পৌছাল বীর সৈন্যের একবাটি দেহাবশেষ।

Share

কাশ্মীরে পুলওয়ামা হামলায় বিরগতী প্রাপ্ত সৈন্যদের দেহ পৌছেছে তাদের ঘরে, কিন্তু কিছু কিছু দৃশ্য এমন যা কল্পনাতেই ওদের পরিবারের মনে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে দেবার মত অর দেশবাসীর মনে আগুন জ্বালানোর মত।

এই ছবি দুটো দেখলে সত্যি হৃদয় কাঁদে না বরং আগ্নেয়গিরির থেকে যেমন লাভা বের হয় তেমন অনুভূতি হয়, কেন না যখন আমরা দেখি দেশেরই ভেতর কেউ এদের মৃত্যুকে নিয়ে হাসি ঠাট্টা,আনন্দ জাহির করে তখন সত্যি ঘরের ভিতরে থাকা পাকিস্তান এর দালাল দের গুলি করে মারতে ইচ্ছে হয়।

▶প্রথম ছবি- রাজস্থানের এই সৈনিক কে কাফিন যখন বাড়িতে পাঠালো শুধু শরীরের এইটুকু টুকরোই পাওয়া গেলো। এবার বুঝতে পারেন যখন কাফিন খুলে উনার মা দেখবে একটু অনুভব করুন কেমন অনুভূতি হবেউনার।

▶দ্বিতীয়ত- 18 বছরের যুবকরা দেশের কথা তো ভাবার দূরের কথা,খেলাধূলা এবং মোবাইল বন্ধুবান্ধবেই ব্যস্ত হয়ে যায় যার ফলে বাড়ির সাথে ওর যোগাযোগ থাকে না বললেই চলে।
আর এই সৈনিক এই বয়েসে দেশের জন্য প্রাণ আহুতি দিয়েছে এরথেকে হৃদয় রোদন হলো এর শরীরের সবগুলি অঙ্গ পাওয়াই যায় নি। এর বাড়ির অবস্থা কি একটু ভাবুন।
তাই বিগত দিন মানসিকতা খুবই চরম পর্যায়ে আছে দেশের বীর সৈনিকদের এমন অবস্থা দেখে। এরথেকেও বেশি মনে আগুন উঠে যখন কিছু স্বার্থপর এবং দেশদ্রোহীরা এতই Freedom Of Speech পেয়ে গেছে যে যা ইচ্ছে বলছে। আমরা ভারতবাসী বরং এইটুকু দায়িত্ব নিতে পারি, 40 জনের প্রাণ আহুতি বদলা আমাদের সৈনিকরা নেবে কি করে সেটা ওদের উপর থাকবে, কিন্তু ঘরের ভিতর লুকিয়ে থাকা দেশদ্রুহী গুলোকে আমাদেরই ধরতে হবে।

Leave a Reply