শিখ শূন্য পশ্চিম পাঞ্জাব(পাকিস্তান)

Share
তথ্য-রিপন নাথ।

যে ভূমিতে শিখ ধর্মের প্রতিষ্ঠা হয় সেই ভূমি আজ শিখ শূন্য । পশ্চিম পাঞ্জাব পাকিস্তান এর সবচেয়ে বড়ো প্রদেশ , এর আয়তন 2 লক্ষ 5 হাজার বর্গ কিলোমিটার, জনসংখ্যা 11 কোটির বেশি ।
পশ্চিম পাঞ্জাব এর নানকানা সাহব এ শিখ ধর্মের প্রবর্তক গুরু নানক জন্মগ্রহণ করেন , শুধু এই অঞ্চল নয় সমগ্র পশ্চিম পাঞ্জাবে শিখ ধর্মে অনেক ইতিহাস আছে , আজ এই পশ্চিম পাঞ্জাব শিখ শূন্য বলা যায় যা আছে তা নগন্য, হিন্দুদের অবস্থান ঠিক এমনি ।
1947 সালে দেশভাগের ফলে সেই অঞ্চলে বসবাসকারী শিখ ও হিন্দুদের পাঞ্জাব ছেড়ে চলে আসতে হয়, হিন্দুদের থেকে শিখদের বেশি ক্ষতি হয় প্রায় 5 লক্ষ শিখদের হত্যা করা হয় এবং বাদবাকি যাঁরা ছিল তাঁরা খুব কষ্টে ভারতে আসে ।
1947 সালে সমগ্র পশ্চিম পাঞ্জাবের মোট জনসংখ্যার প্রায় 5% ছিল শিখ ধর্মে বিশ্বাসী, কিন্তু বর্তমানে সমগ্র পশ্চিম পাঞ্জাবে শিখ ধর্মে লোকের সংখ্যা মাত্র 10 হাজার , যার মধ্যে 6 হাজার বসবাস করেন নানকানা সাহেব জেলাতে, তারপর রাওয়ালপিন্ডিতে প্রায় 1 হাজার , তাছাড়া লাহোর, শিয়ালকোট, নরওয়াল, ফেসলাবাদ এইসব জেলাতে কিছু বসবাস করেন । হিন্দুদের অবস্থানও ঠিক এমনি ।
পশ্চিম পাঞ্জাবে বর্তমানে যে সংখ্যক শিখ আছে তাঁরা ধীরে ধীরে ভারত , কানাডা ও বিভিন্ন পশ্চিমী দেশে চলে যাচ্ছে কয়েক বছরের মধ্যেই পশ্চিম পাঞ্জাব সম্পূর্ণ শিখ শূণ্য এলাকায় পরিণত হবে ।

Leave a Reply