রাজ্যের প্রবেশদ্বার চুড়াইবাড়ী থেকে DEMO TRAIN চালুর দাবি উঠছে।

Share

ত্রিপুরার প্রবেশদ্বার তথা রেল মানচিত্রে প্রথম স্টেশন চুড়াইবাড়ী। দিন দিন সর্ব অংশের মানুষের এই স্টেশনের উপর ভরসা বেড়েই চলছে। যেহেতু সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের যাতায়াতের প্রধান মাধ্যম রেল তার জন্য শুধু ত্রিপুরা নয় আসাম রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলার কাঠালতলি, লোয়াইরপোয়া,বাজারিছড়া আরো অনেক ছোট বড় গ্রামের মানুষের ভরসা এই চুড়াইবাড়ী স্টেশন। কিন্তু ভাবার বিষয় ত্রিপুরায় ব্রডগেজ লাইন সম্প্রসারণ হওয়ার পর অনেক গুলি স্থানীয় ও দূরপাল্লার ট্রেনের সাথে নতুন সংযোজন ডেমো ট্রেন চলাচল করছে, চুড়াইবাড়ীর ক্ষেত্রে জুটেছে শুধু শিলচর-আগরতলা ও ধর্মনগর-শিলচর স্থানীয় ট্রেন। যার জন্য এই অঞ্চলের শত শত মানুষ ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায় যেতে হলে রাত্রি ৩ টায় সয্যাত্যাগ করে সকাল ৫.৪৫ এর ট্রেন ধরতে হয় ধর্মনগর থেকে, ভালো চিকিত্সা সেবা পেতে বহিরাজ্যে যেতে হলে দূরপাল্লার ট্রেন ধরতে হয় ধর্মনগর নতুবা ৯০ কঃমি দুর বদরপুর থেকে। অনেক সময় ট্রেন ধরতে তাড়াহুড়োর কারণে যাত্রীদের প্রান যাওয়ার মত দুর্ঘটনার সম্মুখীন ও হতে হয়। তাই এই সব বিষয়ে নজর রেখে চুড়াইবাড়ী স্টেশনে যাতে সকাল বেলা রাজধানী আগরতলা গামী স্থানীয় ট্রেন, ডেমো ট্রেন ও দূরপাল্লার ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয় ও চুড়াইবাড়ী স্টেশনের ঐতিহ্য ও গুরুত্ব কে তুলে ধরার জন্য ত্রিপুরা সরকারের শিল্প উন্নয়ন নিগমের চেয়ারম্যান মাননীয় টিংকু রায় মহোদয়, ত্রিপুরা সরকারের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব মহোদয় ও রেল আধিকারিকদের দৃষ্টিআকর্ষণ করতে শারদীয় দুর্গাপূজার পর কদমতলা-কুর্তি বিধানসভার সকল সম্মানিত নাগরিক,সমাজসেবক,বুদ্ধিজীবী ও সংবাদকর্মী দের সহযোগিতা কামনা করছি ।

Leave a Reply