মোহাম্মদ সিমরাজের হাতে ধর্ষিত ৩ মাসের গর্ভবতী ছাগল। 

Share

মধ্যযুগীয় বর্বরতাকে হার মানার মতো ঘটনা ঘটলো বিহারের একটি প্রত্যন্ত গ্রামে।   মদমত্ত  অবস্থায় এক নরপশু  একটি গর্ভবতী ছাগলকে ধর্ষণ করল বিহারের সেই প্রত্যন্ত গ্রামে।সেই মদ্যপের হাতে ধর্ষিত তিন মাসের গর্ভবতী ছাগল  পাটনার পরশা বাজারে। মঙ্গলবার বিকেলে ধর্ষণের এই ঘটনাটি ঘটেছে।   মঙ্গলবার দুপুর বেলা থেকেই ছাগলটিকে খুঁজে পাচ্ছিলেননা ছাগলটির মালিক,  ছাগল টির মালিক জানান অনেক খোঁজাখুঁজির পরেও তিনি তার ছাগলটিকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না।   এর পরের দিন অর্থাৎ বুধবার ভোর সকালে তিনি তার বাড়ির সামনে ছাগলটি কে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন।   ছাগলের মালিক পুলিশে খবর দেন এবং অভিযোগ করেন যে তার ছাগলকে কেউ খুন করে তার বাড়ির সামনে ফেলে দিয়ে গেছে।   পুলিশ তদন্তে নেমে মোহাম্মদ সিমরাজ নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে বলে জানা গেছে।  পুলিশের তদন্তে সিমরাজ তার অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছে বলে জানা গেছে। মদমত্ত অবস্থায় সে গর্ভবতী সেই ছাগলটিকে অনুব্রত ধর্ষণ করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। সিমরাজের অনবরত ধর্ষণের ফলে গর্ভবতী ছাগলটি  অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং মৃত্যু হয়, তারপর মৃত সেই ছাগলটিকে সে ওই ছাগলটির মালিক এর বাড়ির সামনে ফেলে রেখে চলে যায় বলে জানা গেছে।  ভারতীয় দণ্ডবিধির পশু সুরক্ষা আইন অনুসারে সিমরাজের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে বিহার পুলিশ।  উপযুক্ত কড়া শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন ছাগলের মালিক।

Leave a Reply