রাম মন্দির হচ্ছে অযুধ্যায়

Share

রাম মন্দির নিয়ে বিরুধীদের রাতের ঘুম উড়ে যাবার মত খবর। সুপ্রিম কোর্টের দীর্ঘ তালবাহানা এবং তারিকের পর তরিকে অতিষ্ট হয়ে এবার বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করে সাংবিধানিক পদ্ধতিতে NOC চেয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে রাম মন্দির নিয়ে তালবাহানার কারনে আদালতের উপর বিরুধী বামপন্থী ও কংগ্রেসের প্রভাব আছে বলে অভিযোগ করছিলেন বিভিন্ন বিজেপির নেতা। আদালতের উপর তারা ভরসা রাখতে পারছিলেন না, তাই এবার বিরোধীদের রাতের ঘুম কেড়ে নেবার এবং রামভক্ত দের খুশি করার জন্য এই বড় পদক্ষেপ নিচ্ছে মোদী সরকার।

গতদিনই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এর এক বক্ত্যব্য ঘিরে উত্তাল রাষ্ট্র রাজনীতি। গতদিনই উনি বলেছেন আদালত না পারলে উনিই ২৪ ঘন্টার মধ্যে রাম মন্দিরের মামলার নিস্পত্তি করে দেবেন।

রাম মন্দির নির্মাণের কাজ খুব শীঘ্রই শুরু হতে চলেছে বলে খবর। এর জন্য সাংবিধানিক প্রক্রিয়াও শুরু করে দিয়েছে মোদী সরকার, এরকম সূত্রের খবর। আদালতের উপর ভরসা না করে মন্দির বিষয়ে হস্তক্ষেপ করে আদালতের কাছ থেকে NOC চেয়েছে মোদী সরকার।

বিজেপির বর্তমান পলিটিকাল গুরু শুভ্রমন্যম স্বামী আগেই বলেছিলেন আদালতের উপর ভরসা না করে আদালতকে প্রস্তাব দিয়ে মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু করা যাবে। গতকালই বিজেপির পলিটিকাল গুরু শুভ্রমন্যম স্বামীর সাথে স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয়ের আধিকারিক সাক্ষাৎ করে এবং আজ সরকার জমির উপর NOC দেয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।

আগে থেকেই সরকারের হাতে য়ে জমি অধিকৃত আছে অবন্টিত সেই জমিকেই হিন্দু পক্ষকে দেয়ার প্রকৃয়া শুরু হয়েছে। পলিটিকাল গুরু শুভ্রমন্যম স্বামীর দেখানো পথেই এবার হাঁটছে সরকার। NOC না নিয়েও হিন্দু পক্ষকে জমি বন্টন করতে পারে যদি সরকার চায়, কিন্তু সাংবিধানিক নীতি মেনে চলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

আদালত থেকে NOC পেলেই জমি হিন্দুপক্ষকে অর্পণ করবে এবং মন্দিরের কাজ শুরু হবে। লোকসভা ভোটের আগে সবচেয়ে সবচেয়ে বড় দাও দিল মোদী সরকার। উল্লেখ্য আদালত NOC দিতে অস্বীকার করতে পারবে না কারন এটা সাংবিধানিক অধিকার সরকারের। সম্ববত খুব শীঘ্রই মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

Leave a Reply