ভারতীয় সেনার ভরসা মোদী।

Share

প্রধানমন্ত্রি নরেন্দ্র মোদি: ভারতীয় প্রতিরক্ষা এবং সামরিক বিভাগের ক্ষেত্রে আশীর্বাদস্বরূপ – মিঠু চট্টোপাধ্যায়।

মোদিজি প্রায়শই নিজেকে দেশের চৌকিদার বলে থাকেন. আর এই নিয়েও বিরোধীদের ব্যঙ্গ আর অভিযোগের ও অন্ত নেই।

আসুন না, একবার দেখেই নি আমাদের দেশের প্রতিরক্ষা এবং সামরিক বিভাগ মোদী জমানাতে উত্তরোত্তর উন্নতির দিকে কিভাবে অগ্রসর হয়েছে।

এই বিষয় নিয়েও পড়াশোনা করেছি আর এটাও বুঝেছি প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে মোদীজির impact একটা পোস্টে লেখা সম্ভব নয়। তাই ওনার উল্লেখযোগ্য কিছু পদক্ষেপ তুলে ধরলাম এই লেখার মাধ্যমে :

আধুনিক বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট :

ভাবলে হতাশ হবেন দেশ স্বাধীনের 70 বছর পরে ও আমাদের জওয়ানরা, যারা নিজেদের জীবনের বাজী রেখে দেশকে সুরক্ষা দিয়ে চলেছেন তাঁদের নূন্যতম চাহিদাগুলো ও পুর্ববর্তী সরকার পূরণ করে নি!!! মোদীজির সময়ে এই প্রথম ভারতীয় সেনাবাহিনী বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট পাচ্ছে ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ প্রজেক্টের অন্তর্গত 180 কোটি টাকায় 1,86,683 টি জ্যাকেট তৈরির বরাত পেয়েছে দিল্লির SMPP লিমিটেড। বাঙালি হিসাবে ভাবতে গর্ব হয় যে এই জ্যাকেটের ডিজাইন করেছেন একজন বাঙালি, নাম ড: শান্তনু ভৌমিক।

কম্ব্যাট হেলমেট

আপনারা জানেন মোদীজির আগে অবধি ভারতীয় সেনাবাহিনী 1974 সালের ডিজাইনএ তৈরী হেলমেট ব্যবহার করতো!! তারপর কত সরকার এল গেল‘ কত পরিবারের সম্পত্তির পরিমান কয়েকশো কোটি বাড়লো!!! কিন্ত সেনাবাহিনী আধুনিকীকরণের সামান্যতম ব্যবস্থা করা হলো না!! মোদীজির আমলে এই প্রথম আমাদের সেনাবাহিনী কম্ব্যাট হেলমেট পাচ্ছে। উচ্চ প্রযুক্তির ব্যালেস্টিক এই হেলমেটগুলি বুলেট ফায়ার এবং শার্পনেল হিট অতি অনায়াসে সহ্য করবে। এছাড়াও কয়েকটি হেলমেটে উচ্চ প্রযুক্তির communication device ও থাকবে.

রাফায়েল ডিল

এটি একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। 7.8 মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ফ্রান্সের Dassault Rafale কোম্পানির সাথে ভারত 36টি রাফায়েল যুদ্ধবিমান কিনতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। রাফায়েল একটি মাঝারি মাল্টি- রোল যুদ্ধবিমান, যা আমাদের high-end সুখোই বিমান এবং low-end তেজাস যুদ্ধবিমানএর মধ্যের শূন্যস্থান অতি সহজেই পূরণ করবে। এছাড়া ও এই চুক্তি অনুযায়ী Dassault র থেকে আমরা Meteor ও Scalp মিসাইলএর সাথে 5 বছরের সাপোর্ট প্যাকেজও পাচ্ছি।

রাশিয়া চুক্তি

S-400 মিসাইল সিস্টেম টি অদ্যাবধি ভারতের সেরা প্রযুক্তিগত মিসাইল সিস্টেম, যেটি ব্যবহারিক দিক দিয়ে উৎকর্ষতার সর্বোচ্চ পর্যায় লাভ করেছে। বিশেষ করে এর দূরত্ব নির্ণয় আর ব্যবহারের সহজতা.. এটি প্রায় 400 কিলোমিটার অতিক্রম করার ক্ষমতা রাখে। গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো প্রায় পুরো পাকিস্তানই কিন্তু এর আয়ত্তের মধ্যে ! মানেটা বুঝলেন তো

মোদীজির করা আরেকটি বড়ো চুক্তি হলো, 272Sukhoi -30MKI FIGHTERS, যার মূল্য $12 মিলিয়নেরও অধিক এবং যুদ্ধজাহাজ INS Vikramaditya এর ভারতীয় নৌ বাহিনীতে অন্তর্ভুক্তি।

ইসরায়েল চুক্তি

প্রায় $77.70 লক্ষ এর এই চুক্তি মোতাবেক ভারতীয় নৌবাহিনীর সাতটি যুদ্ধজাহাজকে ‘Barak 8’ দূরপাল্লার ভূমি থেকে আকাশ ক্ষেপণাস্ত্র এবং ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি সরবরাহ করবে ইসরায়েল মহাকাশ ইন্ডাস্ট্রি (IAI)। গত বছর $200 কোটির চুক্তি করে ইসরায়েল থেকে ভারতীয় সেনা এবং নৌবাহিনীর জন্য ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা প্রযুক্তিও ক্রয় করেছিল ভারত।

মেক ইন ইন্ডিয়া

প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে মোদীজির স্বপ্নের । ’মেক ইন ইন্ডিয়া’ র অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। তার বিস্তারিত বিবরণ আমি পরের কোনো লেখাতে দেবো।

সত্যি বলুন তো এবার মনে হয় না we are really in the safe hands of নরেন্দ্র মোদী। আমরা আশ্বস্ত, আমরা নিশ্চিন্ত…… আমাদের চৌকিদার শ্রী নরেন্দ্র মোদী সদাজাগ্রত!! বিশ্বাস করুন তাঁকে, ভরসা করুন তাঁকে…..

Mithu Chatterjee

One thought on “ভারতীয় সেনার ভরসা মোদী।

Leave a Reply